1. কোন মৌলিক বা যৌগিক পদার্থের ক্ষুদ্রতম কণ,, যা ঐ পদার্থের গুণাবলি অক্ষুণ্ন রেখে স্বাধীনভাবে অবস্থান করতে পারে, কিন্তু রাসায়নিক বিক্রিয়ায় অংশগ্রহণ করে না, সেই ক্ষুদ্রতম কণাকে অণু বলে।

    কোন মৌলিক বা যৌগিক পদার্থের ক্ষুদ্রতম কণ,, যা ঐ পদার্থের গুণাবলি অক্ষুণ্ন রেখে স্বাধীনভাবে অবস্থান করতে পারে, কিন্তু রাসায়নিক বিক্রিয়ায় অংশগ্রহণ করে না, সেই ক্ষুদ্রতম কণাকে অণু বলে।

    See less
    • 0
  2. কোন মৌলের পূর্ণ নামের সংক্ষিপ্ত প্রকাশকে ঐ মৌলের প্রতীক বলে। প্রতীকের মাধ্যমে প্রতিটি মৌলকে আলাদাভাবে প্রকাশ করা যায়। যেমন - H হচ্ছে হাইড্রোজেন মৌলের প্রতীক,, O হচ্ছে অক্সিজেন মৌলের প্রতীক, Na হচ্ছে সোডিয়াম মৌলের প্রতীক ইত্যাদি।

    কোন মৌলের পূর্ণ নামের সংক্ষিপ্ত প্রকাশকে ঐ মৌলের প্রতীক বলে। প্রতীকের মাধ্যমে প্রতিটি মৌলকে আলাদাভাবে প্রকাশ করা যায়।

    যেমন – H হচ্ছে হাইড্রোজেন মৌলের প্রতীক,, O হচ্ছে অক্সিজেন মৌলের প্রতীক, Na হচ্ছে সোডিয়াম মৌলের প্রতীক ইত্যাদি।

    See less
    • 0
  3. This answer was edited.

    যে দ্রাবক অকেন জৈব ও অজৈব দ্রবকে দ্রবীভূত করে তাকে সার্বজনীন দ্রাবক বলা হয়। যেমন - পানি একটি সার্বজনীন দ্রাবক। 

    যে দ্রাবক অকেন জৈব ও অজৈব দ্রবকে দ্রবীভূত করে তাকে সার্বজনীন দ্রাবক বলা হয়। যেমন – পানি একটি সার্বজনীন দ্রাবক। 

    See less
    • 0
  4. একটি পরমাণুতে তিনটি মৌলিক কণিকা বিদ্যমা।। এগুলো হলো – ইলেকট্রন, প্রোটন ও নিউট্রন। নিউট্রন চার্জ বা বিদ্যুৎ নিরপেক্ষ। প্রোটন ধনাত্মক আধানযুক্ত এবং ইলেকট্রন ঋণাত্মক আধানযুক্ত। যেহেতু কেন্দ্রে অবস্থিত ধনাত্মক আধানযুক্ত প্রোটনের সমানসংখ্যক ঋণাত্মক আধানযুক্ত ইলেকট্রন কেন্দ্রের বাহিরে অবস্থান করে,তাই পরমাRead more

    একটি পরমাণুতে তিনটি মৌলিক কণিকা বিদ্যমা।। এগুলো হলো – ইলেকট্রন, প্রোটন ও নিউট্রন। নিউট্রন চার্জ বা বিদ্যুৎ নিরপেক্ষ। প্রোটন ধনাত্মক আধানযুক্ত এবং ইলেকট্রন ঋণাত্মক আধানযুক্ত।

    যেহেতু কেন্দ্রে অবস্থিত ধনাত্মক আধানযুক্ত প্রোটনের সমানসংখ্যক ঋণাত্মক আধানযুক্ত ইলেকট্রন কেন্দ্রের বাহিরে অবস্থান করে,তাই পরমাণুতে মোট আধান শূন্য হয়। তাই একটি পরমাণু সাধারণ অবস্থায় চার্জ বা বিদ্যুৎ নিরপেক্ষ থাকে।

    See less
    • 0
  5. একটি পরমাণুতে তিনটি মৌলিক কণিকা বিদ্যমা।। এগুলো হলো - ইলেকট্রন, প্রোটন ও নিউট্রন। নিউট্রন চার্জ নিরপেক্ষ। প্রোটন ধনাত্মক আধানযুক্ত এবং ইলেকট্রন ঋণাত্মক আধানযুক্ত। যেহেতু কেন্দ্রে অবস্থিত ধনাত্মক আধানযুক্ত প্রোটনের সমানসংখ্যক ঋণাত্মক আধানযুক্ত ইলেকট্রন কেন্দ্রের বাহিরে অবস্থান করে,তাই পরমাণুতে মোট আধRead more

    একটি পরমাণুতে তিনটি মৌলিক কণিকা বিদ্যমা।। এগুলো হলো – ইলেকট্রন, প্রোটন ও নিউট্রন। নিউট্রন চার্জ নিরপেক্ষ। প্রোটন ধনাত্মক আধানযুক্ত এবং ইলেকট্রন ঋণাত্মক আধানযুক্ত।

    যেহেতু কেন্দ্রে অবস্থিত ধনাত্মক আধানযুক্ত প্রোটনের সমানসংখ্যক ঋণাত্মক আধানযুক্ত ইলেকট্রন কেন্দ্রের বাহিরে অবস্থান করে,তাই পরমাণুতে মোট আধান শূন্য হয়। তাই একটি পরমাণু সাধারণ অবস্থায় চার্জ নিরপেক্ষ থাকে।

    See less
    • 1
  6. যেসব সূক্ষ্ম কণিকা দ্বারা পরমাণু গঠিত তাদেরকে মৌলিক কণিকা বলে।

    যেসব সূক্ষ্ম কণিকা দ্বারা পরমাণু গঠিত তাদেরকে মৌলিক কণিকা বলে।

    See less
    • 0
  7. পদার্থের ক্ষুদ্র কণাকে পরমাণু বলে।

    পদার্থের ক্ষুদ্র কণাকে পরমাণু বলে।

    See less
    • 0
  8. NaCl দ্বারা সোডিয়াম ক্লোরাইডকে বোঝায়। যা খাবার লবণ হিসেবে পরিচিত। এই সংকেত দ্বারা বোঝা যায় যে এই পদার্থটিতে সোডিয়াম ধাতুর একটি পরমাণু ক্লোরিন গ্যাসের একটি পরমাণুর সাথে যুক্ত হয়ে সোডিয়াম ক্লোরাইড (NaCl) গঠন করেছ।

    NaCl দ্বারা সোডিয়াম ক্লোরাইডকে বোঝায়। যা খাবার লবণ হিসেবে পরিচিত। এই সংকেত দ্বারা বোঝা যায় যে এই পদার্থটিতে সোডিয়াম ধাতুর একটি পরমাণু ক্লোরিন গ্যাসের একটি পরমাণুর সাথে যুক্ত হয়ে সোডিয়াম ক্লোরাইড (NaCl) গঠন করেছ।

    See less
    • 0
  9. "ধ্বনি" এর বিপরীত শব্দ প্রতিধ্বনি।

    “ধ্বনি” এর বিপরীত শব্দ প্রতিধ্বনি

    See less
    • 0
  10. যেসব ধ্বনি উচ্চারণের সময় উপরের মাড়ির গোড়ার শক্ত অংশ অর্থাৎ, মূর্ধায় স্পর্শ করে উচ্চারিত হয় তাদেরকে মূর্ধন্য ধ্বনি বলে। যেমন - ট, ঠ,ড,ঢ,ণ।

    যেসব ধ্বনি উচ্চারণের সময় উপরের মাড়ির গোড়ার শক্ত অংশ অর্থাৎ, মূর্ধায় স্পর্শ করে উচ্চারিত হয় তাদেরকে মূর্ধন্য ধ্বনি বলে। যেমন – ট, ঠ,ড,ঢ,ণ।

    See less
    • 0