1. ২০১৮ রাশিয়া বিশ্বকাপে সবার আগে নিজেদের টিকিট নিশ্চিত করে পাঁচবারের বিশ্ব চ্যাম্পিয়ন ব্রাজিল। ঘরের মাঠে ২০১৪ বিশ্বকাপে চরম ভাবে বিদায় নেয় তারা। তাই এবারের লক্ষ্য ষষ্ঠবারের মতো বিশ্বকাপ শিরোপা অর্জন। আর যার নেতৃত্ব দিবেন পিএসজির প্রাণভোমর নেইমার। চলুন তার আগে জেনে নেয়া যাক জাতীয় দলের হয়ে ২৫ বছর বয়সRead more

    ২০১৮ রাশিয়া বিশ্বকাপে সবার আগে নিজেদের টিকিট নিশ্চিত করে পাঁচবারের বিশ্ব চ্যাম্পিয়ন ব্রাজিল। ঘরের মাঠে ২০১৪ বিশ্বকাপে চরম ভাবে বিদায় নেয় তারা। তাই এবারের লক্ষ্য ষষ্ঠবারের মতো বিশ্বকাপ শিরোপা অর্জন। আর যার নেতৃত্ব দিবেন পিএসজির প্রাণভোমর নেইমার। চলুন তার আগে জেনে নেয়া যাক জাতীয় দলের হয়ে ২৫ বছর বয়সি নেইমার কত ম্যাচে কত গোল করেছেন।

    ম্যাচ: ৮৩টি
    গোল: ৫৩টি।
    এ্যাসিস্ট: ৩৬টি

    See less
    • 0
  2. বিভিন্ন সময়ে ফুটবল খেলায় নেইমারের পরিসংখ্যান হলোঃ বিশ্বকাপে এখন পর্যন্ত ১টি আসর খেলেছেন নেইমার। এ এক আসরে তিনি অংশ নিয়েছেন মাত্র ৫টি ম্যাচে। করেছেন ৪টি গোল এবং এ্যাসিস্ট ১টি। হলুদ কার্ড ১টি। বিশ্বকাপ বাছাই পর্বে ১৪টি ম্যাচ খেলেছেন নেইমার। ৬টি গোলের পাশাপাশি এ্যাসিস্ট করেছেন ৯টি। হলুদ কার্ড ৮টি। আনRead more

    বিভিন্ন সময়ে ফুটবল খেলায় নেইমারের পরিসংখ্যান হলোঃ

    বিশ্বকাপে এখন পর্যন্ত ১টি আসর খেলেছেন নেইমার। এ এক আসরে তিনি অংশ নিয়েছেন মাত্র ৫টি ম্যাচে। করেছেন ৪টি গোল এবং এ্যাসিস্ট ১টি। হলুদ কার্ড ১টি।
    বিশ্বকাপ বাছাই পর্বে ১৪টি ম্যাচ খেলেছেন নেইমার। ৬টি গোলের পাশাপাশি এ্যাসিস্ট করেছেন ৯টি। হলুদ কার্ড ৮টি।

    আন্তর্জাতিক প্রীতি ম্যাচ খেলেছেন ৫৩টি। গোল সংখ্যা ৩৬, এ্যাসিস্ট ২১ ও হলুদ কার্ডের সংখ্যা ৯টি।
    কোপা আমেরিকা কাপে পিএসজির প্রাণভোমর ৬টি ম্যাচে অংশ নিয়েছেন। প্রতিপক্ষের জালে গোল জড়িয়েছেন ৩টি এবং এ্যাসিস্ট করেছেন ১টি। হলুদ কার্ডের সংখ্যা ২টি আর লাল কার্ডও খেয়েছেন ১টিতে।
    কনফেডারেশন কাপে ৪টি ম্যাচ খেলার সুযোগ পেয়েছেন নেইমার। করেছেন ৪টি গোল। এ্যাসিস্ট ৪টি। হলুদ কার্ড ১টি।

    See less
    • 0
  3. আসন্ন রাশিয়া বিশ্বকাপ প্রায় অনিশ্চিত ছিল আর্জেন্টিনার। কিন্তু বাছাইপর্বের শেষ ম্যাচে ইকুয়েডরকে ৩-০ গোলে পরাজিত করে শেষ পর্যন্ত বিশ্বকাপের টিকিট নিশ্চিত করে আর্জেন্টিনা। আর এ ম্যাচে হ্যাট্রিক করে কোটি ভক্তের আশা পূরণ করেন মেসি। লিওনেল মেসি আর্জেন্টিনার হয়ে কত ম্যাচ খেলে কত গোল করেছেন তা হলো- ম্যাচ: ১Read more

    আসন্ন রাশিয়া বিশ্বকাপ প্রায় অনিশ্চিত ছিল আর্জেন্টিনার। কিন্তু বাছাইপর্বের শেষ ম্যাচে ইকুয়েডরকে ৩-০ গোলে পরাজিত করে শেষ পর্যন্ত বিশ্বকাপের টিকিট নিশ্চিত করে আর্জেন্টিনা। আর এ ম্যাচে হ্যাট্রিক করে কোটি ভক্তের আশা পূরণ করেন মেসি। লিওনেল মেসি আর্জেন্টিনার হয়ে কত ম্যাচ খেলে কত গোল করেছেন তা হলো-

    ম্যাচ: ১২৩টি
    গোল: ৬১টি।
    এ্যাসিস্ট: ৪২টি

    See less
    • 0
  4. বিশ্বকাপের তিন আসরে অংশ নিয়ে মেসি খেলেছেন ১৫ ম্যাচ। গোল করেছেন৫টি। এ্যাসিস্ট ৬টি। বিশ্বকাপ বাছাই পর্বে ৪৫টি ম্যাচ খেলেছেন মেসি। ২১টি গোলের পাশাপাশি এ্যাসিস্ট করেছেন ১১টি। হলুদ কার্ড ১টি। আন্তর্জাতিক প্রীতি ম্যাচ খেলেছেন ৪২টি। গোল সংখ্যা ২৭, এ্যাসিস্ট ১২ ও হলুদ কার্ডের সংখ্যা ৩টি। কোপা আমেরিকা কাপRead more

    বিশ্বকাপের তিন আসরে অংশ নিয়ে মেসি খেলেছেন ১৫ ম্যাচ। গোল করেছেন৫টি। এ্যাসিস্ট ৬টি।

    বিশ্বকাপ বাছাই পর্বে ৪৫টি ম্যাচ খেলেছেন মেসি। ২১টি গোলের পাশাপাশি এ্যাসিস্ট করেছেন ১১টি। হলুদ কার্ড ১টি।

    আন্তর্জাতিক প্রীতি ম্যাচ খেলেছেন ৪২টি। গোল সংখ্যা ২৭, এ্যাসিস্ট ১২ ও হলুদ কার্ডের সংখ্যা ৩টি।

    কোপা আমেরিকা কাপে বার্সার প্রাণভোমর ২১টি ম্যাচে অংশ নিয়েছেন। প্রতিপক্ষের জালে গোল জড়িয়েছেন ৮টি। এ্যাসিস্ট ১৩ এবং হলুদ কার্ডের সংখ্যা ৩টি।

    See less
    • 0
  5. ফিফার ঘোষণা অনুযায়ী বর্তমানে সেরা ফুটবলার ক্রিস্টায়ানো রোনালদো। বিশ্বকাপের বাছাই পর্বে একক নৈপুণ্যে ইউরোপ অঞ্চলে পর্তুগালকে গ্রুপ চ্যাম্পিয়ন করে সরাসরি নিশ্চিত করে বিশ্বকাপে খেলা। দেশের হয়ে কত ম্যাচ খেলে কত গোল করেছেন রোনালদো তা হলো- ম্যাচ: ১৪৭টি গোল: ৭৯টি। এ্যাসিস্ট: ৩৫টি

    ফিফার ঘোষণা অনুযায়ী বর্তমানে সেরা ফুটবলার ক্রিস্টায়ানো রোনালদো। বিশ্বকাপের বাছাই পর্বে একক নৈপুণ্যে ইউরোপ অঞ্চলে পর্তুগালকে গ্রুপ চ্যাম্পিয়ন করে সরাসরি নিশ্চিত করে বিশ্বকাপে খেলা। দেশের হয়ে কত ম্যাচ খেলে কত গোল করেছেন রোনালদো তা হলো-
    ম্যাচ: ১৪৭টি
    গোল: ৭৯টি।
    এ্যাসিস্ট: ৩৫টি

    See less
    • 0
  6. বিশ্বকাপের তিন আসরে অংশ নিয়ে রোনালদো খেলেছেন ১৩ ম্যাচ। গোল করেছেন ৩টি। এ্যাসিস্ট ২ সে সাথে হলুদ কার্ডও খেয়েছেন ২টি। বিশ্বকাপ বাছাই পর্বে ৩৮টি ম্যাচ খেলেছেন রোনালদো। ৩০টি গোলের পাশাপাশি এ্যাসিস্ট করেছেন ১২টি। হলুদ কার্ড ৭টি। আন্তর্জাতিক প্রীতি ম্যাচ খেলেছেন ৪৪টি। গোল সংখ্যা ১৫, এ্যাসিস্ট ৮ ও হRead more

    বিশ্বকাপের তিন আসরে অংশ নিয়ে রোনালদো খেলেছেন ১৩ ম্যাচ। গোল করেছেন ৩টি। এ্যাসিস্ট ২ সে সাথে হলুদ কার্ডও খেয়েছেন ২টি।

    বিশ্বকাপ বাছাই পর্বে ৩৮টি ম্যাচ খেলেছেন রোনালদো। ৩০টি গোলের পাশাপাশি এ্যাসিস্ট করেছেন ১২টি। হলুদ কার্ড ৭টি।

    আন্তর্জাতিক প্রীতি ম্যাচ খেলেছেন ৪৪টি। গোল সংখ্যা ১৫, এ্যাসিস্ট ৮ ও হলুদ কার্ডের সংখ্যা ৫টি।

    ইউরো কাপে রিয়াল মাদ্রিদের প্রাণভোমর ২১টি ম্যাচে অংশ নিয়েছেন। প্রতিপক্ষের জালে গোল জড়িয়েছেন ৯টি। এ্যাসিস্ট ৮ এবং হলুদ কার্ডের সংখ্যা ৩টি।

    ইউরো কাপের বাছাই পর্বে ২৭টি ম্যাচ খেলেছেন সিআর সেভেন। করেছেন ২০ গোল, এ্যাসিস্ট ৪ হলুদ কার্ডও ৪টি।
    কনফেডারেশন কাপে ৪টি ম্যাচ খেলার সুযোগ পেয়েছেন রোনালদো। করেছেন ২টি গোল। এ্যাসিস্ট ১টি।

    See less
    • 0
  7. করোনাভাইরাসের বিরুদ্ধে লড়াইয়ে ক্রিশ্চিয়ানো রোনালদো ও তার ফুটবল এজেন্ট জর্জ মেন্দেস পর্তুগালের হাসপাতালে থাকা করোনা আক্রান্তদের চিকিৎসা খাতে ১০ লক্ষ ডলারেরও বেশি দান করেছেন।

    করোনাভাইরাসের বিরুদ্ধে লড়াইয়ে ক্রিশ্চিয়ানো রোনালদো ও তার ফুটবল এজেন্ট জর্জ মেন্দেস পর্তুগালের হাসপাতালে থাকা করোনা আক্রান্তদের চিকিৎসা খাতে ১০ লক্ষ ডলারেরও বেশি দান করেছেন।

    See less
    • 0
  8. বার্সেলোনার একটি হাসপাতালে ১০ লক্ষ ইউরো দান করেছেন লিয়োনেল মেসি। এলএম ১০ যে সাহায্যের হাত বাড়িয়ে দিয়েছেন, তা জানিয়েছে হাসপাতাল কর্তৃপক্ষ।

    বার্সেলোনার একটি হাসপাতালে ১০ লক্ষ ইউরো দান করেছেন লিয়োনেল মেসি। এলএম ১০ যে সাহায্যের হাত বাড়িয়ে দিয়েছেন, তা জানিয়েছে হাসপাতাল কর্তৃপক্ষ।

    See less
    • 0
  9. রোনালদো সম্পর্কে কিছু অজাান তথ্য হলো- ১. রোনালদোর বাবা মা তার নামটি রেখেছিলেন একজন মার্কিন রাষ্ট্রপতি রোনাল্ড রেগানের সাথে মিলিয়ে কারণ এই নামটি পর্তুগালে সচরাচর দেখা যায় ২. ২০০৩ সালে ১২.২৪ মিলিয়ন মার্কিন ডলার (€১৫ মিলিওন) এর বিনিময়ে ইউনাইটেডে নিয়ে আসে। ২০০৪ সালে রোনালদো ইউনাইটেডের হয়ে প্রথম ট্Read more

    রোনালদো সম্পর্কে কিছু অজাান তথ্য হলো-

    ১. রোনালদোর বাবা মা তার নামটি রেখেছিলেন একজন মার্কিন রাষ্ট্রপতি রোনাল্ড রেগানের সাথে মিলিয়ে কারণ এই নামটি পর্তুগালে সচরাচর দেখা যায়
    ২. ২০০৩ সালে ১২.২৪ মিলিয়ন মার্কিন ডলার (€১৫ মিলিওন) এর বিনিময়ে ইউনাইটেডে নিয়ে আসে। ২০০৪ সালে রোনালদো ইউনাইটেডের হয়ে প্রথম ট্রফি, এফএ কাপ জেতেন।
    ৩.২০০৭ সালে তাকে রিয়াল মাদ্রিদ তাকে দলে আসার জন্যে প্রস্তাব দেন কিন্তু তিনি তখন সাড়া দেয়নি পরবর্তীতে ২০০৯ ২৬ জুন সালে রিয়াল মাদ্রিদ তাকে ৮০ মিলিয়ন(১৩১.৬ মিলিয়ন) এর বিনিময়ে তাদের দলে নিয়ে আসেন যা ইতিহাসের সবচেয়ে দামী খেলোয়াড়ের সম্মান পান।
    ৪. রোনালদোকে রিয়াল মাদ্রিদে স্বাগত জানানোর জন্য ৮০,০০০ থেকে ৮৫,০০০ দর্শক স্যান্টিয়াগো বার্নাব্যুতে জড় হয়, যা দিয়াগো মারাদোনার ৭৫,০০০ দর্শকের রেকর্ড ভঙ্গ করে।
    ৫. তিনি ২০১১ জয় করা সোনার বুট ফিলিস্তিনের দরিদ্র শিশুদের জন্য নিলামে বিক্রি করে দিয়েছিলেন এবং সিরিয়াতে শরনার্থীদের ৫০০০ ঘর বানিয়ে দিয়েছিলেন৷
    ৬. তিনি ইন্দোনেশিয়ার উপ-রাষ্ট্রপতি জুসুফ কাল্লা ও পূর্ব টিমোরের রাষ্ট্রপতি জানানা গুসমাওর সাথে দেখা করেন এবং তার নিজস্ব খেলার সরঞ্জামাদির নিলাম করে ৬৬,০০০ পাউন্ড সংগ্রহ করেন।
    ৭. ২০১০ থেকে ২০১৫ সাল পর্যন্ত তিনি রাশিয়ান সুপারমডেল ইরিনা শায়ক এর সাথে ডেট করেন ক্রিস্তিয়ানো রোনালদো একজন পর্তুগিজ ফুটবলার। বর্তমান সময়ের সেরা খেলোয়াড় এবং তিনি সর্বকালের সেরা ফুটবলারদের মধ্যে একজন । জুভেন্টাস এবং পর্তুগাল জাতীয় দলে ফরোয়ার্ড হিসেবে খেলে থাকেন। রোনালদো বিশ্বের প্রথম খেলোয়াড় হিসেবে চ্যাম্পিয়ন্স লিগে ১০০ গোল করার রেকর্ড গড়েন।

    See less
    • 0
  10. একটু সুযোগ পেলেই রোনালদো ছুটে যান নিজের জন্মস্থান ছোট্ট দ্বীপ ফুনচালে, এখানেই বেড়ে উঠেছেন তিনি। ২০১২ সালে ফিলিস্তিনি শিশুদের জন্য তাঁর গোল্ডেন বুট নিলামে তুলে পাওয়া ১৫ লাখ ইউরো দান করেন। ২০১৪ সালে মারাত্মক ব্যাধি নিয়ে জন্ম নেওয়া পর্তুগিজ এক দম্পতির সন্তান এরিক অরতিজের চিকিৎসার সব খরচ দিয়েছিলেন। ২০১৬Read more

    একটু সুযোগ পেলেই রোনালদো ছুটে যান নিজের জন্মস্থান ছোট্ট দ্বীপ ফুনচালে, এখানেই বেড়ে উঠেছেন তিনি। ২০১২ সালে ফিলিস্তিনি শিশুদের জন্য তাঁর গোল্ডেন বুট নিলামে তুলে পাওয়া ১৫ লাখ ইউরো দান করেন। ২০১৪ সালে মারাত্মক ব্যাধি নিয়ে জন্ম নেওয়া পর্তুগিজ এক দম্পতির সন্তান এরিক অরতিজের চিকিৎসার সব খরচ দিয়েছিলেন। ২০১৬ সালের নভেম্বরে ফুনচালে দ্বীপে আগুন লেগে অনেক মানুষ গৃহহীন হয়ে পড়লে সাহায্যের হাত বাড়িয়ে দেন তিনি। তাঁর হৃদয়ের একটি বিশাল অংশজুড়ে রয়েছে শিশুরা। মিয়ানমার থেকে বাংলাদেশে আসা রোহিঙ্গা শিশুদের সাহায্যের জন্যও বিশ্ববাসীর কাছে আকুল আবেদন জানিয়েছেন ক্রিস্টিয়ানো রোনালদো।
    নিয়মিত রক্ত দান করেন বলে শরীরে উল্কি আঁকান না রোনালদো। এক মুমূর্ষু রোগীকে অস্থিমজ্জা দান করার সংবাদটিও ভক্তদের কাছে অজানা নয়। যুক্তরাষ্ট্রভিত্তিক ওয়েবসাইট অ্যাথলেটস গন গুড, ডুসামথিং ডটওআরজি নামের একটি প্রতিষ্ঠানের সঙ্গে যৌথভাবে ২০১৫ সালে দানশীল ক্রীড়াবিদের একটি তালিকা প্রকাশ করে। সেই তালিকাতে সবার শীর্ষেই আছে রোনালদোর নাম। ভক্তরা তাঁর জার্সি চাইলে মনে করে তা-ও দিয়ে যান।

    See less
    • 0
  11. মানবিক দিক থেকে লিওনেল মেসি- ‘ইউনিসেফের একজন শুভেচ্ছাদূত হিসেবে আমি তাদের বিরুদ্ধে খেলতে পারি না, যারা নিরীহ ফিলিস্তিন শিশুদের বিনা অপরাধে হত্যা করে। আমাদের খেলাটি অবশ্যই বাতিল করতে হতো, কারণ ফুটবলার হওয়ার আগে আমরা মানুষ।’ রাশিয়া বিশ্বকাপ উপলক্ষে ইসরায়েলের বিপক্ষে জেরুজালেমে প্রস্তুতি ম্যাচটি বাতিলেRead more

    মানবিক দিক থেকে লিওনেল মেসি-

    ‘ইউনিসেফের একজন শুভেচ্ছাদূত হিসেবে আমি তাদের বিরুদ্ধে খেলতে পারি না, যারা নিরীহ ফিলিস্তিন শিশুদের বিনা অপরাধে হত্যা করে। আমাদের খেলাটি অবশ্যই বাতিল করতে হতো, কারণ ফুটবলার হওয়ার আগে আমরা মানুষ।’ রাশিয়া বিশ্বকাপ উপলক্ষে ইসরায়েলের বিপক্ষে জেরুজালেমে প্রস্তুতি ম্যাচটি বাতিলের পর আর্জেন্টাইন ফুটবল জাদুকরের এই বক্তব্যে মানবিকতার দৃষ্টান্তই ফুটে ওঠে। প্রতি মিনিটে ৫০ হাজার ডলারের লোভনীয় প্রস্তাব ফিরিয়ে দিয়ে তিনি বরং ম্যাচটি বাতিলে মুখ্য ভূমিকা রাখেন।
    ২০০৭ সালে প্রতিষ্ঠা করেন ‘লিও মেসি ফাউন্ডেশন’। ২০১৩ সালে নিজ শহর রোজারিওর শিশু হাসপাতালে ৬ লাখ ইউরো সহায়তা দেন। ২০১৫ সালে প্রবল বন্যায় আর্জেন্টিনার অন্তত ১১ হাজার মানুষ গৃহহীন হয়ে পড়লে মেসি তাদের পাশে দাঁড়ান। ২০১৬ সালের শেষের দিকে আর্জেন্টিনা ফুটবল ফেডারেশন আর্থিক সংকটে পড়লে এবং দুর্নীতির কারণে নিরাপত্তারক্ষীদের বেতন পরিশোধ না হওয়ায় মেসি নিজের ব্যাংক হিসাব থেকে তাদের বেতন মিটিয়ে দেন।

    See less
    • 0